ঢাকা: রাত ১০:৫৮ মিনিট, বৃহস্পতিবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ,গ্রীষ্মকাল, ১০ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি
জাতীয়বিশেষ প্রতিবেদন

ঈদ এলেও তাতে স্বাস্থ্য বিষয়ক সতর্কতায় কোনো ঢিল না দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঘরে থেকেই ঈদ উদযাপন করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

এএনবি নিউজএজেন্সি ডটকমনিজস্ব প্রতিবেদক, এএনবি নিউজএজেন্সি ডটকম : পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগের দিন জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ঈদ মুবারক’ জানিয়ে সবাইকে এবার ঘরে থেকেই ঈদ উদযাপন করতে বলেছেন।

রবিবার দেওয়া এই ভাষণে প্রধানমন্ত্রী যেমন সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করতে বলেছেন, তেমনি এই সঙ্কটকালে সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষেপও তুলে ধরেন। দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে যারা কাজ করছেন, সেই চিকিৎসকসহ অন্যদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

সবাইকে ‘ঈদ মুবারক’ জানিয়ে শুরু করা এই ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আপনারা সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন। ঘরে বসেই ঈদের আনন্দ উপভোগ করুন।” ঈদ খুশিতে মেতে ওঠার দিন হলেও এবার রোগের প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রেক্ষাপট যে ভিন্ন, সেটা সবাইকে উপলব্ধি করার আহ্বান জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, “করোনা নামক এক প্রাণঘাতী ভাইরাস সারা বিশ্বে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। তার উপর ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তাণ্ডবে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বেশ কয়েকটি জেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, “এ বছর আমরা সশরীরে পরস্পরের সঙ্গে মিলিত হতে বা ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করতে না পারলেও টেলিফোন বা ভার্চুয়াল মাধ্যমে আত্মীয় স্বজনের খোঁজখবর নেব।”

“আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে। মনে রাখবেন আপনি সুরক্ষিত থাকলে আপনার পরিবার সুরক্ষিত থাকবে, প্রতিবেশী সুরক্ষিত থাকবে, দেশ সুরক্ষিত থাকবে।”

সঙ্কটকালে ঈদের সময় ধনবানদের অন্যদের পাশের দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এই দুঃসময়ে আপনি আপনার দরিদ্র প্রতিবেশী, গ্রামবাসী বা এলাকাবাসীর কথা ভুলে যাবেন না। “আপনার যেটুকু সামর্থ্য আছে, তাই নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ান। তাহলেই ঈদের আনন্দে পরিপূর্ণ হয়ে উঠবে আপনার ঘর এবং হৃদয়-মন।”

ঈদের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি চিকিৎসক, নার্সসহ যে স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সেবা করছেন, তাদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া পুলিশ, বিজিবি, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী, সশস্ত্রবাহিনীর সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ও মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তা, যারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ত্রাণসামগ্রী বিতরণসহ সরকারের নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন, তাদেরও শুভেচ্ছা জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাষণ শেষ করেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘ঈদের গান’ ‘ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এল খুশির ঈদ’ আবৃত্তির মধ্য দিয়ে।

Hur Agency

এমন আরো সংবাদ

Back to top button