ঢাকা: রাত ১১:০৬ মিনিট, বৃহস্পতিবার, ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ ,গ্রীষ্মকাল, ১০ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি
জাতীয়বিশেষ প্রতিবেদন

বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়ে ১৪

বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে মৃত্যু

এএনবি নিউজএজেন্সি ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, এএনবি নিউজএজেন্সি ডটকম :সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বুধবার এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, “আমরা একটি দুঃসংবাদ বলতে চাই, বাংলাদেশে প্রথম একজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত হিসেবে মৃত্যুবরণ করেছেন। তিনি একজন বয়স্ক ব্যক্তি ছিলেন, সত্তরের ওপরে তার বয়স। আমরা গতকাল বলেছিলাম তার কোমর্বিডিটি ছিল।”

বিদেশফেরত এক ব্যক্তির সংস্পর্শে আসায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন ওই বৃদ্ধ। তার আগে থেকেই সিওপিডি (ফুসফুসের ক্রনিক রোগ) ছিল, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও কিডনি জটিলতা ছিল। এছাড়া হৃদযন্ত্রে একবার স্টেন্টিংও হয়েছিল।

তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছিল জানিয়ে আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, “সেই দিক থেকে তিনি উচ্চ ঝুঁকির মধ্যে ছিলেন এবং আমরা তাকে হারিয়েছি। আমরা তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।”

সংবাদ সম্মেলনে মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, মৃত ব্যক্তির কাছ থেকে রোগটি যেন ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কীভাবে তাকে দাফন করতে হবে তা স্বজনদের বলে দেওয়া হয়েছে।

“আমাদের লোকও সেখানে গেছে। ওই ব্যক্তি থেকে কোনোভাবে যেন রোগটি অন্যের মধ্যে ছড়িয়ে না পড়ে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এটা নিয়ে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করতে চাই না।”

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে চারজনের আক্রান্ত হওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

ফলে বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে। তাদের মধ্যে প্রথম দফায় আক্রান্ত তিনজন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন; হাসপাতালে ভর্তি আছেন দশজন।

অধ্যাপক ফ্লোরা বলেন, নতুন আক্রান্ত চারজনের মধ্যে একজন নারী ও তিনজন পুরুষ; বয়স ২০ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে।

তাদের মধ্যে একজন আগে আক্রান্ত একজনের পরিবারের সদস্য। বাকি তিনজন বিদেশফেরত, দুজন ইতালি থেকে এবং একজন কুয়েত থেকে এসেছেন।

আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছেন এমন ১৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে; আর ৪২ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে জানান মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

তিনি বলেন, আক্রান্ত যে দশজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন, তাদের মধ্যে চারজন নভেল করোনাভাইরাসের পাশাপাশি অন্য রোগেও আক্রান্ত।

“একজনের উচ্চ রক্তচাপ, একজনের ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে। একজনের আগে স্ট্রোক হয়েছিল, আরেকজনের কিডনিতে সমস্যা আছে। তাদের করোনাভাইরাসের উপসর্গ মৃদু, কিন্তু কোমর্বিডিটি আছে।”

বিশ্বজুড়ে নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর গত ৮ মার্চ প্রথম বাংলাদেশে তিনজন এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর জানায় আইইডিসিআর।

ওই তিনজনের মধ্যে দুজন ইতালি থেকে এসেছিলেন। ইতালি ফেরত একজনের পরিবারের সদস্য ছিলেন আক্রান্ত তৃতীয়জন। ওই সময় আক্রান্তদের হাসপাতালে ভর্তির পাশাপাশি আরও চারজনকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছিল।

এরপর গত ১৪ মার্চ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরও দুজন আক্রান্তের খবর জানান। ওই দুজন ইউরোপের দেশ ইতালি ও জার্মানি থেকে এসেছিলেন। তাদেরই একজনের মাধ্যমে পরিবারের এক নারী ও দুই শিশুর আক্রান্ত হওয়ার খবর আইডিসিআর জানায় সোমবার।

আর মঙ্গলবার আরও দুইজনের মধ্যে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার কথা জানিয়ে বলা হয়,তাদের একজন হাসপাতালে কোয়ারেন্টিনে ছিলেন, অন্যজন বিদেশফেরত একজনের সংস্পর্শে এসে আক্রান্ত হয়েছেন।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের ১৫৬টি দেশে ২ লাখের বেশি মানুষ নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন; মৃতের সংখ্যা আট হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

Hur Agency

এমন আরো সংবাদ

Back to top button