প্রবাসবিশেষ প্রতিবেদনরংবেরঙ

সৌদি আরব বিদেশিদের জন্য প্রথমবারের মতো দ্বার খুলছে

সৌদি আরবে ভ্রমণ ভিসা চালুর সিদ্ধান্ত

নিউজ ডেস্ক,এএনবি নিউজএজেন্সি ডটকম: শুক্রবার ৪৯টি দেশের নাগরিকদের জন্য সৌদি আরব এই ভ্রমণ ভিসা চালুর ঘোষণা দেয়া হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি।

দেশটিতে নারীদের ড্রোস কোড নিয়ে যে কঠোর বিধিনিষেধ রয়েছে, বিদেশি পর্যটকদের বেলায় তা শিথিল করা কথাও ঘোষণায় বলা হয়েছে।

সৌদি আরবের পর্যটন বিষয়ক মন্ত্রী আহমাদ আল-খতিব একে ‘ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ আখ্যা দিয়েছেন।

“ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যের পাঁচটি স্থাপনা, প্রাণবন্ত সংস্কৃতি এবং অনন্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের যে ভাণ্ডার আমরা শেয়ার করতে যাচ্ছি তা দেখে পর্যটকরা মুগ্ধ হবেন,” বলেছেন তিনি।

সৌদি আরব এতদিন ধরে মূলত হজযাত্রী, ব্যবসায়ী এবং অভিবাসী শ্রমিকদেরই ভিসা দিত।

পর্যটন খাতে বিদেশি বিনিয়োগের আশায় দেশটি এবার থেকে ভ্রমণ ভিসাও চালু করল।

তেলের ওপর নির্ভরশীলতা কমানো ও বিস্তৃত অর্থনৈতিক সংস্কারে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, বলছেন পর্যবেক্ষকরা।

সুন্নি সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটি ২০৩০ সালের মধ্যে আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক পর্যটক মিলিয়ে বছরে ১০ কোটি ভ্রমণপিপাসুকে আকৃষ্ট করে জিডিপিতে পর্যটনের অবদান ৩ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশ নিশ্চিত করতে চায়; এ খাতে চাকরি সৃষ্টি করতে চায় অন্তত ১০ লাখ।

শুক্রবারের ঘোষণায় বিদেশি নারী পর্যটকদের সৌদি আরবে ভ্রমণের সময় শরীর ঢাকা ঢিলেঢালা আবায়া পরিধান বাধ্যতামূলক নয় বলেও জানানো হয়েছে।

সৌদি আরবের নারীদের ক্ষেত্রে এতদিন এই বিধান বাধ্যতামূলক থাকলেও সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকজন নারীর আবায়া ছাড়া চলাচলের ছবি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এসেছে।

কোনো নারী চাইলে একাও সৌদি আরব ভ্রমণ করতে পারবেন, ঘোষণায় এমনটাই বলা হয়েছে বলেও জানিয়েছে বিবিসি।

আবায়া পরিধান না করলেও বিদেশি নারী পর্যটকদের অবশ্যই শালীন পোশাক পরতে হবে, বলেছেন আহমাদ।

“আমাদের একটি সংস্কৃতি আছে। আমরা বিশ্বাস করি, আমাদের বন্ধু এবং অতিথিরা এ সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধা দেখাবেন। (পোশাক) যে মার্জিত হতে হবে, তা খুবই স্পষ্ট,” বলেছেন তিনি।

আহমদ জানান, বিদেশি পর্যটকদের জন্য দ্বার উন্মোচন করলেও অমুসলিমদের মক্কা ও মদিনায় প্রবেশাধিকার থাকছে না; মদের ওপর নিষেধাজ্ঞাও বহাল থাকবে।

কোন ৪৯টি দেশের নাগরিকদের এ পর্যটন ভিসার সুবিধা দেয়া হবে শুক্রবার পরের দিকে তা জানা যেতে পারে।

সৌদি আরবের তেল শিল্পক্ষেত্রের কেন্দ্রস্থলে হওয়া সাম্প্রতিক হামলা ভ্রমণপিপাসুদের দূরে সরিয়ে রাখবে না বলেও আশা এ পর্যটনমন্ত্রীর।

“বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ শহরগুলোর মধ্যে আমাদের শহরগুলিও আছে। যে কারণে সাম্প্রতিক হামলা আমাদের পরিকল্পনায় প্রভাব ফেলবে বলে মনে হচ্ছে না। সৌদি আরবজুড়ে এখনো অনেক বিদেশি আছেন, তারা সৌদি আরব উপভোগও করছেন। আমরা খুবই সুরক্ষিত,” বলেছেন তিনি।

এমন আরও সংবাদ

Back to top button